Membership Policy

সদস্য হতে করণীয়:
যে কোন দেশের যে কোনো ব্যক্তি তার প্রকৃত পরিচয়পত্র যেমন: ঘওউ/জন্ম নিবন্ধন/পাসপোর্টের ফটোকপি জমাদান সাপেক্ষে এই লাইব্রেরীর সদস্য হতে পারবে। সদস্য হওয়ার জন্য আগ্রহী ব্যক্তিকে লাইব্রেরী কর্তৃপক্ষের নিকট থেকে সদস্য ফরম সংগ্রহ করে ১ কপি পাসপোর্ট ও ১ কপি স্ট্যাম্প সাইজের ছবি আবেদন ফরমের সাথে সংযুক্ত করতে হবে। উল্লেখ্য যে, প্রতি বছর সদস্যতা নবায়ন করতে হবে নতুবা সদস্যতা বাতিল বলে গণ্য হবে।

সদস্য হওয়ার নিয়মাবলী:
১. মেগাটেক পাবলিক লাইব্রেরী এর সদস্য হওয়া একটি সর্বদা স্বতন্ত্র বিষয়।
২. বইধার নেয়ার জন্য আগ্রহী পাঠকদের সদস্য হতে নির্ধারিত ফরমে মেগাটেক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান বরাবর আবেদন করতে হবে। ১০০ (একশত) টাকা আবেদন ফি প্রদান সাপেক্ষে গ্রন্থাগার থেকে আবেদন ফরম সংগ্রহ করা যাবে।
৩. যথাযথ আবেদনপত্র পূরণের মাধ্যমে অফিসে জমাদানের পর আবেদন পত্র গৃহীত হলে সদস্য হওয়া যাবে।
৪. মেগাটেক পাবলিক লাইব্রেরী হতে তিন ধরনের সদস্য আবেদন ফরম সংগ্রহ করতে পারবেনঃ
(ক) শিশু সদস্য – অনুর্ধ্ব ১০ বছরের ছেলে বা মেয়ে।
(খ) ছাত্র-ছাত্রী সদস্য – ১০ বছরের উর্ধ্বে যে কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত ছাত্র/ছাত্রী।
(গ) সাধারণ সদস্য – শিশু ও সাধারণ ছাত্র/ছাত্রী ব্যতীত সকল শ্রেণি/পেশার জনগণ।
৫. বয়স প্রমাণ করার জন্য আবেদনপত্রের সাথে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান/বিভাগীয় প্রধান/১ম শ্রেণির গেজেটেড সরকারি কর্মকর্তা কর্তৃক সত্যায়িত পাসপোর্ট সাইজের ১ কপি ছবি এবং স্ট্যাম্প সাইজের ১ কপি ছবিসহ জাতীয় পরিচয়পত্রের অনুলিপি সংযুক্ত করতে হবে।
৬. সাধারণ সদস্য ফি ১০০০/= (এক হাজার) টাকা, নবায়ন ফি ৫০০ টাকা এবং ছাত্র-ছাত্রীর সদস্য ফি ৬০০ টাকা, নবায়ন ফি ৩০০ টাকা। শিশু সদস্যদের ক্ষেত্রে ২০০/= (দুইশত টাকা) সদস্য রেজিস্ট্রেশনের জন্য এবং নবায়ন ফি ১০০/=(এক শত টাকা)।
৭. মাসিক গ্রন্থাগার চাঁদা ১০০/= (এক শত টাকা) (সাধারণ), ৫০ (পঞ্চাশ টাকা) (ছাত্রছাত্রী) এবং ৩০ (ত্রিশ টাকা) (শিশু সদস্য)।
৮. সদস্য কার্ড সদস্যকে নিজের কাছে রাখতে হবে। ঐ কার্ডের সাহায্যেই তিনি লাইব্রেরীতে বই দেওয়া-নেওয়া করতে পারবেন। অসাবধানতাবশত কেউ কার্ড হারিয়ে ফেললে, তাকে ৫০.০০(পঞ্চাশ) টাকা নবায়ন ফি জমা দিয়ে নতুন কার্ড করতে হবে।
৯. যদি কোন সদস্য বর্তমান ঠিকানা, মোবাইল নম্বর ইত্যাদি পরিবর্তন করেন তবে তা কর্তৃপক্ষকে অবশ্যই জানাতে হবে।
১০. কর্তৃপক্ষ নীতিমালার যেকোন শর্ত প্রয়োজনে পরিবর্তন, পরিবর্ধন, সংযোজন করতে পারবেন।

১১. এই গ্রন্থাগারের সদস্যদের দুটি সুযোগ রয়েছে- ১. পাঠকক্ষে বসে পড়া ২. বাড়িতে বই নেওয়া।
১২. প্রত্যেক সদস্যকে এককালীন সর্বোচ্চ ১৫ (পনের) দিনের জন্য ০২ (দুই) টি বইয়ের বেশি ধার দেয়া যাবে না। অন্য কোন সদস্যের চাহিদা না থাকলে উক্ত ০২ (দুই) টি বই উক্ত পাঠক ধারাবাহিকভাবে সর্বোচ্চ ০২ (দুই) বার ধার নিতে পারবেন।
১৩. নির্ধারিত সময়ের মাঝে বই ফেরত দিতে ব্যর্থ হলে প্রথম সপ্তাহে অতিরিক্ত প্রতিদিনের জন্য বই প্রতি ১০/- (দশ টাকা) এবং দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে ১৫/- (পনের টাকা) জরিমানা আদায় করা হবে।
১৪. কোন সদস্য ধার নেয়া বই হারিয়ে ফেললে বা নষ্ট করে ফেললে উক্ত বইয়ের মূল্যের দ্বিগুণ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে বাধ্য থাকবেন অথবা বাজার থেকে নতুন বই সংগ্রহ করে দিতে হবে।
১৫. বইয়ের মধ্যে যেকোন কিছু লেখা/দাগ দেওয়া, ইচ্ছাকৃতভাবে বইয়ের পৃষ্ঠা/মলাট ছেঁড়া সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ। কোন সদস্যের বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে লাইব্রেরী কর্তৃপক্ষ উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবে।
১৬. রেফারেন্স বই, দুষ্প্রাপ্য ও মূল্যবান বই, বিদেশি প্রকাশনা এবং পত্র-পত্রিকা কোনভাবেই ধার দেয়া যাবে না।
১৭. কোন সদস্য বইধার নেয়া সংক্রান্ত নীতিমালা পরিপন্থী কোন কাজ করলে তার সদস্যপদ বাতিলসহ তার জামানত বাজেয়াপ্ত করা হবে।
১৮. এক মাসের বেশি চাঁদা বাকী পড়লে বই সরবরাহ বন্ধ রাখা হবে।
১৯. বইধার সংক্রান্ত বিষয়ে কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে বিবেচিত হবে।
২০. কাউকে সদস্য পদ দেওয়া, না দেওয়া বা পরিস্থিতিগত কারণে কারো সদস্যপদ বাতিল করার ক্ষমতা গ্রন্থাগার কর্তৃপক্ষের থাকবে।